ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস

ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস | BD Newspaper Today

ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস

ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে পড়েছে। তবে ভারতের এক নাগরিক পাকিস্তানে থাকা অবস্থায় ফাঁদে ফেলে শারীরিক সম্পর্ক জড়ায় সে ভারতীয় একজন নারী। এরপর ৫১ বছর বয়সী ওই ভারতীয় নাগরিক গোরখপুরে ফিরে আসার পর বুঝতে পারেন। আসলে তিনি পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই-এর খপ্পরে পড়েগেছে।

তবে আইএসআই-এর ফাঁদ থেকে রক্ষা পেতে ভারতের লখনৌর সেনা গোয়েন্দা (এমআই) এবং উত্তর প্রদেশের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়ার্ড।

পাকিস্তানের দু’জন অ্যাজেন্ট মুহাম্মদ হানিফকে (নাম পরিবর্তিত) করাচির পতিতালয়ে নিয়ে যায়। সেখানে তার সঙ্গে নারীর অন্তরঙ্গ মুহূর্ত ভিডিও করে রাখা হয়।

এসব করার পরে তিনি দেশে ফিরে আসেন দেশে ফিরে আসতেই তাকে ব্ল্যাকমেইল করা শুরু করে আইএসআই। আইএসআই ছিলেন ব্যক্তিকে নির্দেশ দেয়। তবে ভারতের সেনাবাহিনীর সম্পর্কে গোপন তথ্য খুঁজে বের করতে চান।

ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, গোরখপুর রেলস্টেশন, ভারতের বিমানবাহিনীর ঘাঁটি, সেনা ছাউনির ছবি তুলে পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয় ওই চা দোকানদারকে।

তবে এনিয়ে ভারতের সেনাবাহিনীর হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ঢোকার নির্দেশ দেওয়া হয় তাকে। ওই ব্যক্তির কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অযোধ্যায় ভূমিপূজার দিন গোরখপুরে হামলার ছক করছিল পাকিস্তানি দুষ্কৃতিতীরা।

তবে এসবের মধ্যেই পাকিস্তানের ফোন নম্বর থেকে ওই ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগের খবর পায় ভারতের সেনা গোয়েন্দা বিভাগের জম্মু কাশ্মীর ইউনিট।

তারা দ্রুত সে খবর জানায় লখনৌ সেনা ইউনিটকে। সেনাবাহিনীর গুপ্তচরদের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় উত্তরপ্রদেশের দুর্নীতিদমন শাখার সঙ্গে।

সেনাবাহিনী এবং উত্তরপ্রদেশ এটিএসের যৌথ অভিযানে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থার ছক বানচাল হয়ে যায়। জানা গেছে, ওই চা বিক্রেতাকে ফাঁসিয়েছে পাকিস্তানের গুপ্তচররা। পাকিস্তানে নিজের আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন মুহাম্মদ হানিফ। আর তারপরই তার জীবনে নেমে আসে অভিশাপ। নিজের অনিচ্ছা সত্ত্বেও একের পর এক ভারতবিরোধী কাজ করতে হয়েছে তাকে।

জানা গেছে, ২০১৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বেশ কয়েকবার পাকিস্তানে গেছেন হানিফ। তবে সর্বশেষ ২০১৮ সালে করাচিতে যাওয়ার পর তিনি ফাঁদে পড়ে যান।

হানিফ ১৯৯৫ সালে প্রথম বিয়ে করেন। সেই স্ত্রী ২০১৪ সালে মারা গেছে। করাচিতে তার নিজের দুই ফুফু আছে। তাদেরই এক মেয়েকে পরে বিয়ে করেছেন হানিফ।

তবে ভারতবিরোধী প্রথমে কর্মকাণ্ড করেননি বলে জানালেও পরে সব খুলে বলেন হানিফ। তবে এ বিষয়টি এখন তদন্ত করে দেখছে ভারতের সেনা গোয়েন্দারা।

Tags: ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস bd news, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস bd newspaper, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস bd news 24 bangla, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস bd newspaper all, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস bangla newspaper, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস bd news 24, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস newspaper, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস news today, ভারতীয় নাগরিক যৌনতার ফাঁদে, গোপন তথ্য হাতানোর চেষ্টায় ফাঁস bangladeshi newspaper.

Leave a reply