প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক

প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক | BD Newspaper Today

প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক

প্রাইভেট পড়ানোর নাম করে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে মনোয়ারুল ইসলাম মিঠু (৩৫) নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। তবে তিনি গত ৩০ জুন রংপুরের বদরগঞ্জের একটি শিক্ষালয়ে এ ঘটনাটি ঘটে। যার ফলে এ ঘটনার সাথে যারা অভিযুক্ত তাদেরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে সেখানে মিঠু উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর সুগারমিল হাই স্কুলের ইংরেজি বিষয়ে শিক্ষক ছিলেন। এবং তার বাড়ির পাশে রংপুর সদর উপজেলার চন্দনপাট ইউনিয়নের পুটিমারী গ্রামে বাস করতেন। এবং স্থানীয়ের অভিযোগ সূত্রে জানা যায়। মিঠু নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়মিত ইংরেজি বিষয়ে প্রাইভেট পড়াতেন। করোনা মহামারিতে স্কুল হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে স্কুল ছাত্রীদেরকে পড়াতে পারচ্ছেনা। তবে করোনার এই মহামারির মধ্যে গত ৩০ জুন হঠাৎ করে শিক্ষক মিঠু ফোন করে বাড়ি থেকে ডেকে আনে শিক্ষার্থীকে। এবং তাকে বলা হয় করোনা নিয়ে ঘরে বসে না থেকে লেখাপড়া চালিয়ে যেতে হবে। তবে ইংরেজি ভালোভাবে না পড়লে ভালো ফল আশা করা যাবে না। তবে আরো ভলা হলো যে তোমাদের যে সকল ছাত্রীর সহপাঠী আছে তারা পড়তে আসবে। এবং তবে শিক্ষার্থী স্কুলে গিয়ে দেখল যে তার সহপাঠি যারা আছে তাদেরকে দেখতে পায়নি। এবং স্কুল শিক্ষক কৌশল খাটিয়ে স্কুল শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়ের একটি কক্ষের ভিতর প্রাইভেট পরানোর নামে ডেকে নিয়ে পড়াচ্ছিল। তবে মিঠু একপর্যায়ে স্কুল ছাত্রীর উপর নানা রকম নির্যাতন চালায়।

Tags: প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক bd news, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক bd newspaper, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক bd news 24 bangla, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক bd newspaper all, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক bangla newspaper, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক bd news 24, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক newspaper, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক news today, প্রাইভেট পড়ানোর নামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ গ্রেপ্তার শিক্ষক bangladeshi newspaper.

Leave a reply